জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাবে পাকিস্তান। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ সভায় কাশ্মীর নিয়ে মুখোমুখি হবেন নরেন্দ্র মোদি ও ইমরান খান।




কিন্তু এর মধ্যেই বালাকোটে ধ্বংস হয়ে যাওয়া কয়েকটি সন্ত্রাসী আস্তানা নতুন করে নির্মাণের গুঞ্জন উঠেছে।
ভারতীয় গোয়েন্দাদের দাবি, সাত মাস আগে অভিযান চালিয়ে বালাকোটে ভারতীয় বিমানবাহিনী যে জঙ্গি শিবিরগুলো গুঁড়িয়ে দিয়েছিল, সেখানে ফের জইশ জঙ্গিদের তৎপরতা দেখতে পেয়েছে তারা। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।




কাশ্মীরের অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সুযোগে জইশ-ই-মোহাম্মদ ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে বলে জানায় ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলো।
গত ৫ আগস্টের পর পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে জইশ-ই কমান্ডার মুফতি আবদুল রউফ আসগর বৈঠকও করেন বলে দাবি তাদের।




কাশ্মীর নিয়ে ভারতের পদক্ষেপকে সামনে রেখে জইশ-ই- মোহাম্মদের হামলার আশঙ্কায় রয়েছে তারা। শুধু জম্মু ও কাশ্মীর নয়, গুজরাট ও মহারাষ্ট্রও জইশের টার্গেটে রয়েছে।




গোয়েন্দা সূত্রে আরও জানা গেছে, ভারতে অনুপ্রবেশের জন্য পুঞ্চ ও রাজৌরি সেক্টরের ওপারে থাকা লঞ্চ প্যাডগুলোতে ইতিমধ্যেই অন্তত ১০০ জঙ্গিকে জড়ো করা হয়েছে। জম্মু ও কাশ্মীরে হামলা চালানোই তাদের লক্ষ্য।কাশ্মীরের সেনাব্যারাক বা জাতীয় সড়কে সেনা কনভয়ে সন্ত্রাসীরা হামলা চালাতে পারে আশঙ্কা করছে ভারতীয় গোয়েন্দারা।




বিমানে ওঠার সময় ইমরান খানকে থামিয়ে দিলেন যুবরাজ
সৌদি আরব সফর শেষে নিউইয়র্কে রওনা দেয়ার সময় পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে বিশেষ সম্মানে ভূষিত করেছেন সৌদি সিংহাসনের উত্তরসূরি মোহাম্মদ বিন সালমান।জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যুক্তরাষ্ট্র যেতে ইমরান খানকে নিজের ব্যক্তিগত বিমানটি দিয়েছেন যুবরাজ। দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনালের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।




ইন্ডিয়া টুডের খবর বলছে, শনিবার সৌদি যুবরাজের একটি বিশেষ বিমানে নিউইয়র্কে পৌঁছান ইমরান খান।
খবরে জানা গেছে, নিউইয়র্ক যেতে যখন তিনি একটি বাণিজ্যিক বিমানে উঠছিলেন, তখন তাকে থামিয়ে দেন যুবরাজ। এরপর এ সফরের জন্য তাকে নিজের ব্যক্তিগত বিশেষ বিমানটি ব্যবহারের অনুরোধ জানান এমবিএসখ্যাত মোহাম্মদ বিন সালমান।




এ সময় ইমরান খানকে যুবরাজ বলেন, আপনি আমাদের বিশেষ অতিথি, কাজেই আমার বিশেষ বিমানে আপনি যুক্তরাষ্ট্র যাবেন।
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরাইশি, অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. আবদুল হাফিজ শেখ, প্রবাসী পাকিস্তানি বিষয়ক প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী জুলফিকার আব্বাস বুখারী এ সময় ইমরান খানের সঙ্গে ছিলেন।




দুদিনের সফরে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল-সৌদি ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ছাড়াও দেশটির গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সঙ্গে তিনি বৈঠক করেন।কিছু সংবাদমাধ্যম বলছে, সৌদি এয়ারলাইনসের একটি চার্টার্ড বিমানে মদিনা মুনাওয়ারা থেকে ইমরান খান নিউইয়র্ক সফরে গেছেন।




গণমাধ্যমে কুরাইশি বলেন, কাশ্মীরে কী ঘটছে, তা নিয়ে বিশ্বের মনোযোগ আকর্ষণ করতে সাত দিনের সফরে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছেন ইমরান খান।