মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিলেটের রেজিস্ট্রার মাঠে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে আয়োজিত এক সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি। তারা দেশের সব অর্জন ধ্বংস করে দিয়েছে। এই লুটেরা সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশের সার্বভৌমত্ব থাকবে না।




ফখরুল বলেন, গতকাল রাত থেকে তিনবার মঞ্চ ভাঙা হয়েছে। তারপরও সিলেটের মানুষের সাহসিকতার ফলে এই জনসভা হয়েছে। দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য আজকে এই সভা করছি। এই সভা ব্যর্থ করতে গতরাতে ১৬ জনকে বন্দি করা হয়েছে।




বিএনপি মহাসচিব বলেন, তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি। তারা আগের দিন রাতে ভোট চুরি-ডাকাতি করেছে। বন্দুকের জোরে জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে। সেজন্য আমরা এই সরকারকে অবৈধ সরকার বলি।




তিনি বলেন, এই সরকার সুপরিকল্পিতভাবে রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিয়েছে। একটা গৃহপালিত বিরোধীদল বানিয়েছে। সরকার হা বললে হা বলে, না বললে না বলে।




তিনি আরও বলেন, এই সরকারের প্রতিপক্ষ এখন জনগণ। বিগত নির্বাচনে আমাদের একজন ভোটারও ভোট দিতে পারেননি। অথচ সংবিধানে লেখা আছে জনগণ ক্ষমতার মালিক। আপনারা ভোট দিতে পেরেছেন? শুধু আজকে না, স্বাধীনতার পরেও একই কায়দায় ভোট কেড়ে নিয়েছিল।




তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। করে না বলেই একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছিল। তাদের দুঃশাসনে সেদিন দেশে দুর্ভিক্ষ হয়েছিল।তিনি বলেন,‘সরকার বিদ্যুতের দাম বাড়াচ্ছে, গ্যাসের দাম বাড়াচ্ছে, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়াছে। বিদেশি কেউ বিনিয়োগ করছে না। কারণ এটা একটা লুটেরা দেশ। তারা মেগা প্রজেক্টের নামে মেগা লুট