পারিশ্রমিক বাড়ানোসহ ১১ দফা দাবিতে আন্দোলন করছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। দাবি-দাওয়া না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার ঘোষণা দিয়েছেন তারা। এতে শঙ্কায় পড়েছে জাতীয় দলের ভারত সফর। পাশাপাশি ঘরোয়া ক্রিকেটও স্থবির হয়ে গেছে।




সাকিব-তামিমদের এমন অবস্থানের পরিপ্রেক্ষিতে হার্ডলাইনে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাদের দাবিকে স্রেফ উড়িয়ে দিয়েছেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত আক্রমণও করে বসেছেন তিনি।




পাপনের এ আচরণকে ঔদ্ধত্য বলে মনে করছেন সাবেক বিসিবি প্রেসিডেন্ট সাবের হোসেন চৌধুরী। তিনি বলেন, এটি পাপনের ইগো সমস্যা। এটি হচ্ছে আমি রাজা, সবাই প্রজা। সমস্যা সমাধানের জন্য আমার কাছে সবাইকে আসতে হবে।




আমি মনে করি, এটি অপরিপক্ব নিয়ম। মনে হচ্ছে, বোর্ডে একজন না এলে পুরো ক্রিকেটটাই বন্ধ হয়ে যাবে। এটি অবিশ্বাসযোগ্য। এ রকম ইগো নিয়ে থাকলে অচলাবস্থা কাটবে না।




উদ্ভূত সমস্যা সমাধানের পথও বাতলে দিয়েছেন সাবের হোসেন। তিনি বলেন, পাপন সাহেবকে আমি বলব- ক্রিকেটারদের চায়ের দাওয়াত দিন। তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসুন। কথা বলুন। ইগো বাদ দিন।




সে আমার দিকে তাকায়নি কেন? তার সঙ্গে কথা বলব না- এমন চিন্তাভাবনা নিয়ে বোর্ডের দায়িত্ব পালন করা যায় না। বোর্ড দেশের ক্রিকেটের অভিভাবক। তাদেরই এগিয়ে এসে সমস্যার সমাধান করতে হবে। সংসারে সন্তান দোষ করতেই পারে। সেটি দেখে বাবা যদি বলে তুমি ভুল করেছ, তোমার সঙ্গে আর কথা বলব না। এটি কি কোনো দায়িত্বপূর্ণ কথা হবে?




বোর্ডের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চান ক্রিকেটাররা
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আজ-কালের মধ্যে আলোচনায় বসতে চান আন্দোলনরত ক্রিকেটাররা। সব দাবির প্রাতিষ্ঠানিক বাস্তবায়ন চান তারা। আলোচনা ইতিবাচক হলে ভারত সফরসহ ক্রিকেটের স্বাভাবিক কার্যক্রম চলবে।




বুধবার সন্ধ্যায় গুলশানের একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান পেশাদার ক্রিকেটারদের মুখপাত্র ব্যারিস্টার মুস্তাফিজুর রহমান খান।এর আগে আন্দোলনরত ক্রিকেটারদের পক্ষ থেকে বিসিবির কাছে ১৩ দফা দাবি সংবলিত চিঠি পাঠানো হয়েছে।




ক্রিকেটারদের আইনজীবী জানান, বিকাল ৪টায় ডাক, কুরিয়ার ও ইমেইল যোগে ক্রিকেট বোর্ডকে চিঠি দিয়েছেন। চিঠিতে ১৩টি দাবি উপস্থাপন করা হয়েছে।
এর আগে গত সোমবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ক্রিকেট ব্যবস্থাপনার প্রতি অনাস্থা প্রকাশ করে ১১ দফা দাবি জানিয়েছেন ক্রিকেটাররা। আর এসব দাবি না মানা পর্যন্ত সবধরনের ক্রিকেট থেকে বিরতিতে থাকবেন জাতীয় দল ও জাতীয় দলের বাইরে থাকা সব ক্রিকেটাররা।




ক্রিকেটারদের দাবির প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) এক প্রেস ব্রিফিংয়ে হাজির হয়ে বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন দাবি করেন, ক্রিকেটারদের দাবিগুলো ‘অযৌক্তিক’। শুধু তাই না, তার মতে এসব করা হচ্ছে দেশের ক্রিকেটকে ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে।