বেতন বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলনরত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ঢাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পূর্বঘোষিত সমাবেশ করতে দেয়নি পুলিশ। শিক্ষকদের উপর পুলিশ লাঠি নিয়ে হামলা করে। এতে সমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়।




বুধবার বেলা ১১টায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা কয়েক হাজার শিক্ষক শহীদ মিনার এলাকায় জড়ো হন।কিন্তু পুলিশ আগে থেকেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ ঘিরে রাখায় বাধা পেয়ে শিক্ষকরা সড়কে অবস্থান নেন।




বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ তাদের লাঠিপেটা করে সরিয়ে দেয়; কিছুক্ষণ পর আবার শিক্ষকরা শহীদ মিনারে ঢোকার চেষ্টা করলেও সফল হননি।সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষকদের সংগঠনগুলোর প্লাটফর্ম প্রাইমারি শিক্ষক পরিষদের আহ্বায়ক আনিসুর রহমান বলেন, সরকারি প্রাইমারি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের জন্য দশম গ্রেড এবং সহকারী শিক্ষকদের জন্য ১১তম গ্রেডের ঘোষণা ২০১৭ সালে দেয়া হয়েছিল।




এখনও পর্যন্ত সেই ঘোষণা বাস্তবায়ন না হওয়ায় সারাদেশ থেকে প্রাইমারি শিক্ষকরা ঢাকায় সমাবেশ হয়েছে মহাসমাবেশ করার জন্য। কিন্তু সকাল থেকে বিভিন্ন ধাপে ধাপে পুলিশের বাধার কারণে শিক্ষকরা একত্রিত হতে পারছেন না।




ভিপি নুরের ফেসবুক আইডি হ্যাক
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি ও কোটা আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুরের ফেসবুক আইডি ও পেজ হ্যাক হয়েছে।বুধবার ভোর থেকে নুর তার আইডিটি ব্যবহার করতে পারছেন না।




ভিপি নুর আইডি হ্যাকের বিষয়টি যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন।নুর বলেন, দুষ্কৃতিকারীরা দীর্ঘদিন ধরে তার আইডি হ্যাক করার চেষ্টা করছিল। আজ ভোর থেকে আইডিতে ঢকতে পারছি না।




আইডির ইমেইল এবং ফোন নম্বর বদলে ফেলা হয়েছে। পেজটা উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে শিগগিরই আইনি পদক্ষেপ নেব।তিনি বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় ছাত্রলীগ আমাদের আইডি হ্যাক করেছিল।




তারাই এটা করে থাকতে পারে। এর আগে কোটা আন্দোলনের সংগঠক মশিউর ও বিন ইয়ামীন মোল্লার আইডি হ্যাক হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আমার আইডি হ্যাক করা হয়েছে।




নুর বলেন, আমরা সবসময় ন্যায়ের পক্ষে ও অন্যায়ের বিপক্ষে কথা বলি। এধরনের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে একটি শ্রেণি আমাদেরকে বিতর্কিত করার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। কিন্তু তাদের এ ঘৃণ্য চেষ্টা কখনও সফল হবে না।




তিনি আইডি হ্যাকের প্রেক্ষিতে অপ্রীতিকর কোনো কিছুর জন্য বিব্রত না হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন।