সিরিজের শুরুতে ছিল বায়ুদূষণ। ঘন কুয়াশা ও সূর্যের আলোর অনুপস্থিতিতে দিল্লিতে টি-টোয়েন্টি আদৌ হবে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল।এরপর রাজকোটে ছিল সাইক্লোন ‘মহা’এর শঙ্কা। সেই সঙ্গে তুমুল বৃষ্টি। তবে প্রথম দুই টি-টোয়েন্টি কোনো সমস্যা ছাড়াই নির্বিঘ্নে হয়েছে।



নাগপুরে অবশ্য প্রথমবার কোনো আশঙ্কা ছাড়াই খেলা হতে চলেছে। দূষণ, বৃষ্টি কিংবা ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কামুক্ত হয়েই রোহিত-মাহমুদউল্লাহরা খেলবেন জামথা স্টেডিয়ামে।স্থানীয় আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, বিদর্ভ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলা চলাকালীন এক শতাংশও বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। আবহাওয়া ২৪ থেকে ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে বিরাজমান থাকবে। তবে সেই তুলনায় উষ্ণতা কম থাকবে।




শীতের শুরুতে মহারাষ্ট্রের এ শহরে গরম কম হওয়ার ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। মাঠে কুয়াশা খেলা করবে। সময় গড়ানোর সঙ্গে শিশিরের পরিমাণ বাড়বে। ম্যাচে এটি নিয়ামক ভূমিকা পালন করতে পারে। পরে যারা ব্যাটিং করবে তারা সুবিধা পেতে পারে। কারণ,তখন বল সোজা ব্যাটে আসবে।




দিল্লির হারের বদলা ভারত সুদে আসলে পুষিয়ে নিয়েছে রাজকোটে। এবার নাগপুরে আরেকবার বাংলাদেশকে বিধ্বস্ত করে সিরিজ জেতা লক্ষ্য টিম ইন্ডিয়ার। তবে ছাড় দিতে চান না টাইগাররা। ফলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস পাওয়া যাচ্ছে।




বাংলাদেশকে পেলেই জ্বলে ওঠেন, রহস্য গোপন রাখলেন রোহিত
বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন এ সংস্করণে ভারতের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। সমান ৬টি করে চার-ছক্কায় মাত্র ৪৩ বলে ৮৫ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন তিনি।মূলত রোহিতের ব্যাটেই ২৬ বল আগে এবং ৮ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে নোঙর করে ভারত। আগের ম্যাচে মাত্র ৯ রান করে আউট হন হিটম্যান। ওই টি-টোয়েন্টিতে ৭ উইকেটের দাপুটে জয় তুলে নেন টাইগাররা।




তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ এখন ১-১ সমতায়। রোববার নাগপুরে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ খেলতে নামবে ভারত-বাংলাদেশ। এ ম্যাচে যারা জিতবে, তারাই শিরোপা ঘরে তুলবে।অঘোষিত ফাইনালের আগে সংবাদ সম্মেলনে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে জ্বলে ওঠার রহস্য নিয়ে প্রশ্ন করা হয় রোহিতকে। তবে এ বিষয়ে খোলাসা করে কিছু বলেননি তিনি। শুধু জানিয়েছেন, উপভোগের মন্ত্র থেকেই ভালো খেলার উৎসাহ পান হিটম্যান।




রোহিত বলেন, রহস্যটি বলে দিলে প্রতিপক্ষ বিষয়টি জেনে যাবে। ফলে আমাকে সেভাবে আটকে ফেলবে তারা। কাজেই আমি সেটা খোলাসা করতে চাই না। শুধু বাংলাদেশ নয়, সব দলের বিপক্ষেই খেলা আমি উপভোগ করি। ক্রিকেট খেলার জন্যই আমি এখানে এসেছি। নিজ দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে পারাটা দারুণ সম্মানের। প্রতিটি মুহূর্ত আমি আমি উপভোগ করছি।




কেবল ওই ম্যাচে নয়,বাংলাদেশকে পেলেই আলো ছড়ান রোহিত। টাইগারদের বিপক্ষে ১০ টি-টোয়েন্টি খেলে ৪৫ গড়ে ৪৫০ রান করেছেন তিনি। পথিমধ্যে হাঁকিয়েছেন ৫টি হাফসেঞ্চুরি।
শুধু টি-টোয়েন্টিতেই নয়, বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে রোহিতের পারফরম্যান্স জ্বালাময়ী।




লাল-সবুজ জার্সিধারীদের বিপক্ষে ১৩ ওয়ানডেতে ৩ সেঞ্চুরি এবং ২ হাফসেঞ্চুরি সহকারে ৬৬০ রান করেছেন তিনি।গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেও রূদ্রমূর্তি ধারণ করতে চান ভারতীয় ওপেনার। ভালো কিছুর জন্য নিশ্চয়ই তাকে শুরুতেই থামাতে চাইবেন মাহমুদউল্লাহরাও।