শীত আসছে। ঋতু পরিবর্তনের ফলে স্বাস্থ্য সমস্যার প্রবণতা প্রবলভাবে দেখা দেয়। শীতের সময়ে শরীরের নিতে হয় বাড়তি যত্ন। কারণ এ সময়ে বিভিন্ন ধরনের শরীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।নাক দিয়ে পানি ঝরা, হাঁচি-কাশি, সামান্য জ্বর, ঠাণ্ডা লাগা অতি সাধারণ অথচ ছোঁয়াচে রোগ। শীতে এ রোগটির প্রকোপ বেড়ে যায়। বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস দিয়ে এ রোগের আবির্ভাব ঘটে।




বেশিরভাগ ক্ষেত্রে রাইনো ভাইরাস দিয়ে শ্বাসনালির সংক্রমণে সর্দি হয়। অন্যান্য ভাইরাসের মধ্যে আছে কোরোনো ভাইরাস, প্যারা ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস, রেসপিরেটরি সিনসাইটিয়াল ভাইরাস প্রভৃতি।আসুন জেনে নেই শীতে সুস্থ থাকার ৭ উপায়-




১. শীতকালে জলবায়ু রুক্ষ ও শুষ্ক হওয়ায় আমাদের ত্বক ফাটতে থাকে। তাই ত্বক ভাল রাখতে প্রচুর পরিমানে পানি পান করতে হবে। দিনে অন্তত ৫ থেকে ৬ লিটার জল পান করুন।
২. পান করতে পারেন ভেষজ চা। এমন অনেক ধরনের ভেষজ চা রয়েছে যা আমাদের সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। লেবু এবং ক্যামোমিলের মতো ভেষজ চা আমাদের স্নায়ুকে শান্ত করে এবং শরীরকে শিথিল করে।




৩. চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ভিটামিন জাতীয় ঔষধ খেতে পারেন। কারণ, এগুলি আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করতে এবং ভাইরালজনিত রোগগুলি থেকে শরীরকে দূরে রাখতে সহায়তা করে।
৪. শীতকালীন খাবারে অবশ্যই রাখুন মাশরুমের। মাশরুমের বেশ কয়েকটি প্রজাতি রয়েছে যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারি।




৫. ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার এবং লেবু জাতীয় ফল সেবন করুন। জিঙ্ক জাতীয় খাবার খান। এই খাবার গুলি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
৬. ডায়েটে রাখুন প্রচুর ফলমূল এবং শাকসবজি। কারণ, এগুলিতে থাকা পুষ্টি আমাদের সুস্থ রাখে।




৭. বেশি পরিমাণ ফাইবার যুক্ত খাবার খান। আপেল, ওটস এবং বাদাম ফাইবার যুক্ত খাবার। এগুলি শরীরের ওজন এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করে। ডায়াবেটিসের বিরুদ্ধে লড়াই করে।

সূত্র: বোল্ডস্কাই