কোনো পরিস্থিতিতে জম্মু ও কাশ্মিরের ক্রিকেট উন্নয়নের কাজ থেমে থাকবে না। সোমবার সেই বার্তা স্পষ্ট করে দিলেন বোর্ডের নতুন প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।সোমবার মুম্বইয়ে বোর্ড প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করতে যায় জম্মু ও কাশ্মিরের এক প্রতিনিধিদল। যে দলে ছিলেন রাজ্য দলের অধিনায়ক পারভেজ রসুল, জম্মু ও কাশ্মির দলের মেন্টর ইরফান পাঠান এবং রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার এক আধিকারিক।




সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সৌরভের সঙ্গে জম্মু ও কাশ্মিরের সার্বিক ক্রিকেট উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার আধিকারিক বলেছেন, ‘‘বোর্ড প্রেসিডেন্ট প্রতিনিধিদলের সদস্যদের কথা মন দিয়ে শুনেছেন। আমরা তার কাছে অনুরোধ করেছি যাতে জম্মু ও কাশ্মির ক্রিকেট উন্নয়নে তাঁর সহায়তা পাই। তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন।’’




রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে এই মুহূর্তে নিজেদের ঘরে কোনও ম্যাচ খেলার সুযোগই পাচ্ছেন না পারভেজ রসুলরা। শোনা গিয়েছে, জম্মুতে ম্যাচ আয়োজনের ব্যাপারে সৌরভ বিশেষ উদ্যোগ নিতে চলেছেন। ওই আধিকারিক বলেছেন, ‘‘আশা করছি, জম্মুতে আবার রাজ্য দল ম্যাচ খেলতে পারবে। জম্মুতে একটি কলেজের বড় মাঠ রয়েছে। সেই মাঠের উন্নতি করার কাজ শুরু হবে। খুব সম্ভবত সেখানেই প্রথম শ্রেণির ম্যাচগুলি হবে।’’




এই মুহূর্তে চলতি সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে জম্মু ও কাশ্মির দল তাদের ম্যাচগুলি খেলছে সুরাতে। এখনও পর্যন্ত আশাব্যঞ্জক ফলও করতে পারেনি তারা। তিন ম্যাচে জিতেছে একটি ম্যাচে। হার দুই ম্যাচে। প্রশ্ন উঠছে, রসুলরা কবে ঘরে খেলার সুযোগ পাবেন? জম্মু ও কাশ্মির ক্রিকেট সংস্থার এক পদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, সৌরভ জানিয়েছেন, আগামী দেড় মাসের মধ্যে সেই ছবিটা অনেক স্পষ্ট হয়ে যাবে।




পাঠানদের আশ্বাস সৌরভের জম্মু-কাশ্মীরের পাশে রয়েছি
কোনো পরিস্থিতিতেই জম্মু ও কাশ্মীরের ক্রিকেট উন্নয়নের কাজ থামবে না। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী এ বার্তা দিয়েছেন।সোমবার মুম্বাইয়ে বোর্ড প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করতে যায় জম্মু ও কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের (জেকেসিএ)প্রতিনিধিদল। সেই দলে ছিলেন প্রাদেশিক দলের অধিনায়ক পারভেজ রসুল, মেন্টর ইরফান পাঠান এবং অ্যাসোসিয়েশনের এক কর্মকর্তা।




ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সৌরভের সঙ্গে জম্মু ও কাশ্মীরের সার্বিক ক্রিকেট উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।বৈঠকে উপস্থিত প্রাদেশিক ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তা বলেন, সৌরভ প্রতিনিধিদলের সদস্যদের কথা মন দিয়ে শুনেছেন। আমরা তার কাছে জম্মু ও কাশ্মীর ক্রিকেট উন্নয়নে সহায়তা চেয়েছি। তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন।




রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে এখন নিজেদের ঘরে কোনো ম্যাচ খেলতে পারছেন না রসুলরা। জম্মুতে ম্যাচ আয়োজনে বিশেষ উদ্যোগ নিতে চলেছেন সৌরভ।ওই কর্মকর্তা বলেন, আশা করছি, জম্মুতে আবার ম্যাচ খেলতে পারবে প্রাদেশিক দল। এখানে একটি কলেজের বড় মাঠ রয়েছে। শিগগির সেই ভেন্যুর উন্নয়নকাজ শুরু হবে। সেখানেই প্রথম শ্রেণির ম্যাচগুলো হতে পারে।




চলতি সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে জম্মু ও কাশ্মীর নিজেদের ম্যাচগুলো খেলছে সুরাটে। ফলটা গড়পড়তার-তিন ম্যাচে জিতেছে একটি, হার দুটিতে।প্রশ্ন উঠছে- রসুলরা কবে নিজেদের ডেরায় খেলার সুযোগ পাবেন? জেকেসিএর এক পদস্থ কর্মকর্তা বলেন, সৌরভ জানিয়েছেন আগামী দেড় মাসের মধ্যে সেই চিত্রটা স্পষ্ট হয়ে যাবে।